বইমেলায় অ্যাপে তিনটি এক্সক্লুসিভ ই-বুক

অমর একুশে বইমেলায় দেশে প্রথমবারের মতো দু’জন বিখ্যাত লেখকের তিনটি এক্সক্লুসিভ ই-বুক নিয়ে এসেছে মোবাইল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান বাংলালিংক। বইগুলো আনিসুল হকের ‘এক লক্ষ লাইক’, ইমদাদুল হক মিলনের ‘মরগান সাহেবের প্রেতাত্মা’ ও ‘নয়মাস’।

‘বাংলালিংক বই ঘর’ ই-বুক রিডার অ্যাপটি নির্মাণ করেছে ই বি সলিউশন লিমিটেড। অ্যাপটিতে এ সময়ের বিখ্যাত লেখকদের বিভিন্ন ধরনের বই পাওয়া যাবে, যাদের মধ্যে রয়েছেন মুহাম্মদ জাফর ইকবাল, রাবেয়া খাতুন, আলি ইমাম, ফরিদুর রেজা সাগর, রেজাউদ্দিন স্ট্যালিন প্রমুখ। এছাড়াও স্বর্ণালী যুগের স্বনামধন্য লেখক রবীন্দ্রনাথ, নজরুল, শরৎ চন্দ্র, বিভূতিভূষণ, জীবনানন্দ, সুকুমার রায় এবং অন্যান্য।

সম্প্রতি বাংলালিংক বই ঘর অ্যাপে বইগুলোর উদ্বোধন করা হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আনিসুল হক, বাংলালিংকের হেড অব কন্টেন্ট জিয়াউল হক সিকদার, হেড অব মার্কেটিং কমিউনিকেশন এ কে রাহাত আহমেদ, কর্পোরেট কমিউনিকেশন ম্যানেজার আংকিত সুরেকা, ডিজিটাল কন্টেন্ট ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার শফিক শামসুর রাজ্জাক এবং ইবিএসের ম্যানেজিং ডাইরেক্টর রাফিউর রহমান খান ইউসুফজাই প্রমুখ।

সকলের দোরগোড়ায় ডিজিটাল সেবা পৌঁছে দেবার অঙ্গীকার থেকে বাংলালিংক তার গ্রাহকদের লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, বিনোদন ও শিক্ষাবিষয়ক এক্সক্লুসিভ অ্যাপের মাধ্যমে সর্বোত্তম সেবা দিয়ে আসছে।

ই-বুক অ্যাপ পেতে গ্রাহকরা http://boi.xpress7050.com ভিজিট করতে পারেন অথবা গুগল প্লে স্টোর থেকে বই ঘর অ্যাপ ডাউনলোড করতে পারেন। এই সেবাটি পেতে গ্রাহকদের দিনে মাত্র ২.৪৪ টাকা চার্জ প্রদান করতে হবে এবং ‘বাংলালিংক বই ঘর অ্যাপ’ ডাউনলোড ও ব্রাউজিংয়ের জন্য ভিন্ন ডাটা চার্জ প্রযোজ্য।

বাংলালিংকের হেড অব কন্টেন্ট জিয়াউল হক সিকদার বলেন, ‘বাংলালিংক সবসময় তার গ্রাহকদের উৎকৃষ্টমানের ডিজিটাল পণ্য, অফার এবং সেবা দেওয়ার প্রচেষ্টায় বদ্ধপরিকর। সাধারণ মানুষদের জ্ঞানের ভান্ডারের আওতায় আনতে ‘বাংলালিংক বই ঘর’ অ্যাপ তৈরি করা হয়েছে। এই বইগুলোর মাধ্যমে পাঠকরা বাংলাদেশের ইতিহাস, দেশপ্রেমিক, ভাষা শহীদ এবং ইত্যাদি বিষয়ে বিশদ ধারণা পাবেন। ই-বুক সেবাটি এক কথায় গ্রাহকদের মেধা বিকাশের ক্ষেত্রে আশীর্বাদ হিসেবে কাজ করবে।’

লেখকরা মতবিনিময়ের সময় বলেন, এই উদ্যোগের অংশ হতে পেরে তাঁরা ভীষণ গর্বিত। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের মানুষ যাদের বইমেলায় আসা সম্ভব হয়ে উঠছেনা তারা এখন স্মার্টফোনের মাধ্যমে খুব সহজেই বই পড়তে পারবেন। বইগুলোর আকর্ষণীয় গল্প পাঠকদের উৎসাহী করবে এবং বই পড়ার প্রতি তাদের উদ্দীপনা আরও বৃদ্ধি করবে। লেখকরা মনে করেন, এটি একটি দুর্দান্ত জ্ঞানের ভান্ডার, বইপ্রেমীরা তাদের পছন্দের বই খুব সহজেই ই-বুক-এর মাধ্যমে উপভোগ করতে পারবেন।

প্রযুক্তিকথন/ডেস্ক

Related posts

Leave a Comment