নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জের বাংলাদেশ পর্ব সমাপ্ত

নানা উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশে শেষ হলো যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা আয়োজিত বিশ্বের সর্ববৃহৎ হ্যাকাথন প্রতিযোগিতা ‘নাসা ¯েপস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৭’। রাজধানীর ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ (আইইউবি)-এ বাংলাদেশ পর্বের দুইদিনব্যাপী ফাইনাল হ্যাকাথন রবিবার সন্ধ্যায় বিজয়ীদের পুরস্কৃত করার মাধ্যমে শেষ হয়। গতবারের মতো বাংলাদেশে এই প্রতিযোগিতার আয়োজক হিসেবে ছিলো বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস)।

টানা ৩৬ ঘন্টার চূড়ান্ত হ্যাকাথন শেষে আয়োজিত সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ সচিব শ্যাম সুন্দর সিকদার। বেসিস সভাপতি মোস্তাফা জব্বারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন আইইউবির স্কুল অব ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড কম্পিউটার সায়েন্সের ডিন ড. শাহরিয়ার খান। যুক্তরাষ্ট্র থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হন নাসার এএএএস সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি পলিসি ফেলো সোবহানা গুপ্ত।

অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে আরও বক্তব্য রাখেন বেসিসের পরিচালক ও নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৭ এর যুগ্ম-আহ্বায়ক রিয়াদ এস এ হোসেন, বাংলাদেশ ইনোভেশন ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা ও নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৭ এর যুগ্ম-আহ্বায়ক আরিফুল হাসান অপু, ক্লাউড ক্যাম্প বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ মাহাদী উজ জামান, ডিভাইন আইটি লিমিটেডের চেয়ারম্যান ইকবাল আহমেদ ফখরুল হাসান ও ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান ও অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর ড. তৌহিদ ভুইয়া।

এবারের প্রতিযোগিতার বাংলাদেশ পর্বের ঢাকা অঞ্চলে আত্ম-উন্মেষ, ব্ল্যাক স্যুট ও ড্রোন ফর গ্রিন, চট্টগ্রাম অঞ্চলে অ্যারে সিটিজি, নেস্ট ও অগ্রপথিক, রংপুর অঞ্চলে গ্লাসিয়ার্স ও টিম ইংলাইটাস, সিলেট অঞ্চলে বিডিস্টার ওয়েব ডেভেলপার গ্রুপ, বরিশাল অঞ্চলে ইকো-পিএসটিইউ ও জোয়াপথ নামের দলগুলো বিজয়ী হয়। অতিথিরা বিজয়ীদের হাতে ক্রেস্ট ও সকল অংশগ্রহণকারীদের কাছে সনদপত্র তুলে দেন। বিজয়ীরা নাসার চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের সুযোগ পাবেন। শিগগিরই সেটি ঘোষণা করা হবে।

এবারের প্রতিযোগিতার সহযোগিতায় ছিলো বেসিস স্টুডেন্টস ফোরাম, বাংলাদেশ ইনোভেশন ফোরাম ও ক্লাউড ক্যাম্প বাংলাদেশ। এছাড়া প্লাটিনাম স্পন্সর হিসেবে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ও গোল্ড স্পন্সর হিসেবে ছিলো প্রিজম ইআরপি। অ্যাকাডেমিক পার্টনার হিসেবে ছিলো ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনির্ভাসিটি অব বাংলাদেশ। প্রতিযোগিতা সস্পর্কে http://spaceappschallenge.org ওয়েবসাইট থেকে বিস্তারিত জানা যাবে।

প্রযুক্তিকথন/ডেস্ক/

Related posts

Leave a Comment