‘আইটেল আইটি ১৫০৮’ স্মার্টফোন বাজারে

বাংলালিংক সবার জন্য ডিজিটাল সেবা প্রদানের প্রতিশ্রুতিতে গ্রাহকদের জন্য ফ্রি বান্ডেল অফারসহ সাশ্রয়ীমূল্যে বাজারে নিয়ে এসেছে ‘আইটেল আইটি ১৫০৮’ মডেলের একটি স্মার্টফোন।

ডিজিটাল বিশ্বে সকলকে সম্পৃক্ত করতে এবং যোগাযোগের বাহিরে অনন্য সুবিধা দিতে সুলভমূল্যের এই স্মার্টফোনের সাথে থাকছে বিনামূল্যে ১৮ জিবি ইন্টারনেট এবং ৪৫০ মিনিট টকটাইম (৩০০ মিনিট অন-নেট, ১৫০ মিনিট অফ-নেট (সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত)।

স্মার্টফোনটি ৪ হাজার৩৯০ টাকায় পাওয়া যাবে। এই অফারটি উপভোগ করতে গ্রাহককে ‘it1508’ লিখে ৪৩২১ নম্বর-এ পাঠাতে হবে অথবা * ৫০০০*৫২১# ডায়াল করতে হবে।

স্মার্টফোনটি বুধবার বিকেলে রাজধানীর গুলশানস্থ বাংলালিংকের প্রধান কার্যালয়, টাইগার্স ডেনে একটি উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে উন্মোচন করা হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলালিংকের হেড অব ডিভাইস শাহরিয়ার আহমেদ রেমন, পোর্টফলিও সিনিয়র ম্যানেজার শিবলী সাদিক এবং ট্র্যানসিয়ন বাংলাদেশ লিমিটেড-এর সিইও রেজওয়ানুল হক উপস্থিত ছিলেন।

স্মার্টফোনটিতে রয়েছে, ৫ ইঞ্চি এফডব্লিউভিজিএ স্ক্রিন, ২৪০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি, ৫এমপি+২এমপি এএফ ফ্ল্যাশ ক্যামেরা, অ্যান্ড্রয়েড ললিপপ ৫.১, ১ জিবি র‍্যাম, ৮ জিবি রম, ৩২ জিবি পর্যন্ত মেমোরি সাপোর্ট এবং ১.২ গিগাহার্টজ কোয়াড কোর প্রসেসর।

এই স্মার্টফোনটি বাংলালিংকের গ্রাহকদের সাশ্রয়ীমূল্যে স্মার্ট ডিভাইস ব্যবহারের চরম অভিজ্ঞতা দেবে। এর বড় ব্যাটারি এবং বৃহৎ স্ক্রিন গ্রাহকদের চমৎকার অভিজ্ঞতা দেবে, যার মাধ্যমে তারা ভিডিও, মুভি, গেমস, খবরাখবর ইত্যাদি বাংলালিংকের ফ্রি ইন্টারনেটের সাথে উপভোগ করতে পারবেন।

বাংলালিংকের হেড অব ডিভাইস শাহরিয়ার আহমেদ রেমন বলেন, ‘আমাদের ভবিষ্যৎ ডিজিটাল সুতরাং ডিজিটাল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান হিসেবে বাংলালিংক নিয়মিত তার সম্মানিত গ্রাহকদের জন্য সাশ্রয়ীমূল্যের স্মার্টফোন নিয়ে আসার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। আমরা গ্রাহকদের স্মার্টফোনের সাথে ফ্রি ইন্টারনেটও দিচ্ছি, যেন তারা ডিজিটাল বিশ্বের নতুন সম্ভাবনার সাথে নিজেদের সম্পৃক্ত করতে পারেন, যা তাদের জীবনকে আরও সহজ করে তুলবে।’

ট্র্যানসিয়ন বাংলাদেশ লিমিটেড-এর সিইও রেজওয়ানুল হক বলেন, ‘বাংলালিংকের সাথে এই যাত্রায় যুক্ত হতে পেরে আমরা গর্বিত। আমরা বিশ্বাস করি, যোগাযোগ এবং সাশ্রয়ীমূল্যের স্মার্ট ডিভাইস এবং ডিভাইসের সাথে বিনামূল্যে বান্ডেল অফারের শক্তি আমাদের অর্থনৈতিক অবস্থা পরিবর্তনে সহায়তা করবে যা ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে আমদের সাহস যোগাবে।’

প্রযুক্তিকথন/তুষার/

Related posts

Leave a Comment