বগুড়ায় ষষ্ঠ বিডিনগ সম্মেলন

বগুড়ার নাজ গার্ডেন হোটেলে গত ১৯ মে থেকে শুরু হয়েছে ষষ্ঠ বিডিনগ সম্মেলন ও কর্মশালা। প্রধান অতিথি হিসাবে সম্মেলনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন বগুড়ার ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মোঃ আশরাফুজ্জামান। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ন্যাশনাল একাডেমি ফর কম্পিউটার ট্রেনিং এন্ড রিচার্স (ন্যাকটার), বগুড়ার পরিচালক এস এম ফেরদাউস আলম।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের আইসিটি বিজনেস প্রমোশন কাউন্সিলের (আইবিপিসি) কর্মকর্তা মীর শরীফুল বাশার, ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার্স অ্যাসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ (আইএসপিএবি) এর সহ-সভাপতি ও বিডিনগ সভাপতি রাশেদ আমিন বিদ্যুৎ, বিডিনগ বোর্ড অব ট্রাস্টির সদস্য নুরুল ইসলাম রোমান।

প্রধান অতিথি বগুড়ার ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মোঃ আশরাফুজ্জামান তার বক্তব্যে বলেন, বেশিরভাগ সময় আমরা দেখি এ ধরনের সম্মেলন রাজধানী কেন্দ্রিক হয়, বগুড়ার মতো জায়গায় এ সম্মেলন আয়োজন আমাদের জন্য অত্যন্ত ইতিবাচক দিক। সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশ তৈরিতে কাজ করছে। আপনাদের এ ধরনের উদ্যোগ ডিজিটাল বাংলাদেশের কার্যক্রমকে আরো বেগবান করবে।

বিডিনগ বোর্ড অব ট্রাস্টির সদস্য নুরুল ইসলাম রোমান বলেন, বিডিনগ হচ্ছে বাংলাদেশ নেটওয়ার্ক অপারেটরস গ্রুপ। এটা একটা ফোরাম। সবাই মিলে একসঙ্গে কাজ করার লক্ষ্যে বিডিনগ তৈরি করা হয় যাতে নিজেদের অর্জিত জ্ঞান শেয়ার করা, সাহায্য করা ও নেতৃত্ব তৈরি করা যায়। বিডিনগের বাংলা ও ইংরেজি ওয়েবসাইট আছে। সবাই এখানে যুক্ত হতে পারেন। প্রতি বছর দুটি করে অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। বিডিনগের এ ধরনের সম্মেলন ও ট্রেনিং স্থানীয় প্রকৌশলীদের আরো যুগোপযুগী হতে সহায়তা করছে।

আইএসপিএবি সহ-সভাপতি ও বিডিনগ সভাপতি রাশেদ আমিন বিদ্যুৎ বলেন, ‘বিডিনগের এই ধরনের সম্মেলনের মাধ্যমে বাংলাদেশের প্রযুক্তি জ্ঞান সম্পন্ন মানুষ বিশেষ করে ইঞ্জিনিয়াররা অনেক উপকৃত হচ্ছেন। আমরা বাংলাদেশকে একটি আধুনিক ও উন্নত বাংলাদেশ হিসাবে দেখতে চাই। এই সম্মেলনের মূল উদ্দেশ্য যদিও ইঞ্জিনিয়ারদের মধ্যে প্রযুক্তিগত জ্ঞানের ব্যপ্তি বাড়ানো, তবুও আমরা সামনের দিকে প্রযুক্তিতে আগ্রহী লোকজনকেও এ ধরনের সম্মেলনে সংযুক্ত করার প্রক্রিয়া শুরু করবো। বাংলাদেশের মতো দেশের অনেক ইন্টারনেট প্রফেশনালস দরকার।

বিডিনগের এ সম্মেলনে ৯টি গবেষনা ও প্রযুক্তি বিষয়ক ধারনা উপস্থাপন করা হয়। অপারেশনাল নেটওয়ার্ক সেশনে গ্রামীণফোনের ফয়সল মোবারক (টেলকো ট্রান্সফরমেশন আনফোল্ডেড), বিটেলস এর মোঃ নাহিদুল কিবরিয়া (থ্রেট হান্টিং: থ্রোয়িং অ্যারো! হান্টিং ফর এডভারসারিস ইন উইর আইটি এনভায়রনমেন্ট), বিডিকমের গাজী জিহাদুল কবির (দ্যা ফিউচার অফ ওয়েব টেকনোলজি), গ্রামীণফোনের আজহার আদিব (ক্যান বাংলাদেশ বি এ রিজিওনাল ডাটা হাব!), থ্রেট ইকুয়েশন প্রাইভেট লিমিটেডের মোঃ আল-আমিন তালুকদার (ইনট্রোডাকশন টু কনটেইনার বেইসড ভার্চুয়ালাইজেশন উইথ ডকার) ও ব্রাকের জুবায়ের আল মাহমুদ হোসেইন (আইটি এনভায়রনমেন্ট ইন এন্টারপ্রাইজ এন্ড চ্যালেঞ্জেস) বক্তব্য উপস্থাপন করেন।

একাডেমিক অ্যান্ড অপারেশনাল রিসার্চ নেটওয়ার্ক সেশনে ফাইবার অ্যাট হোমের সায়মন সোহেল বারই (ইন্টারনেট এন্ড কমিউনিটি), বিডিরেনের মোঃ আব্দুল আওয়াল (গেটিং ইনভলবড ইন ইন্টারনেট গর্ভন্যান্স) এবং ইন্টারনেট সোসাইটি বাংলাদেশ ঢাকা চ্যাপ্টারের মোহাম্মদ কাওছার উদ্দীন ও মোঃ আব্দুল আওয়াল (ইন্টারনেট ইঞ্জিনিয়ারিং টাস্কফোর্স আউটরিচ প্রোগ্রাম) বক্তব্য উপস্থাপন করেন।

সম্মেলনের অংশ হিসাবে আগামী ২৩ মে পর্যন্ত ‘আইপিভি৪ এন্ড আইপিভি৬ রাউটিং ফর আইএসপিস’ এবং ‘লিনাক্স সিস্টেম এডমিন এন্ড সিকিউরিটি’ বিষয়ে  টেকনিক্যাল কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে।

প্রযুক্তিকথন/ডেস্ক/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *