মোবাইলে পর্নোগ্রাফি দেখছেন? আরেকবার ভাবুন!

স্মার্টফোনে পর্নোগ্রাফি দেখার অভ্যাস থাকলে তা এখনই পরিত্যাগ করুন। লন্ডনের একদল গবেষক এক গবেষণায় দেখেছেন মোবাইল ফোনে পর্নোগ্রাফি দেখলে সফটওয়্যারের ক্ষতিসহ অনেক তথ্য ফাঁস হওয়ার ঝুঁকি বেড়ে যায়।

ওয়ানডেরা নামের মোবাইল কনসালটেন্সি ফার্মের তথ্য অনুসারে কম্পিউটার থেকে মোবাইলে পর্নোগ্রাফি দেখলে ডিভাইসে ম্যালওয়্যার এবং ম্যালাশাস বাগ সংক্রমণের ঝুঁকি বেশি থাকে। কেননা মোবাইল ফোনে ডেস্কটপ কিংবা ল্যাপটপের মতো একই ধরণের নিরাপত্তা বিষয়ক সেটিংস থাকে না। তবে শুধুমাত্র পর্নোগ্রাফিকেই বিপজ্জনক বলেনি ফার্মটি। পর্নোগ্রাফি সাইটের সাথে গ্যাম্বলিং সাইট, অ্যাড নেটওয়ার্ক এবং স্ক্যাম সাইটগুলোও ঝুঁকিপূর্ণ বলে চিহ্নিত করেছে ফার্মটি।

ওয়ানডেরা ফার্মের সম্পাদক লিয়ানা লা পোর্টা এক ব্লগ পোস্টে লেখেন, ‘কম্পিউটারে না দেখে মোবাইল ফোনে পর্নোগ্রাফি দেখলে গ্রাহকের নিরাপত্তা ঝুঁকি বেড়ে যায়। স্মার্টফোনের অপারেটিং সিস্টেমগুলো, বিশেষত অ্যান্ড্রয়েড ডেস্কটপের মতো অতোটা নিরাপদ নয়। সেক্ষেত্রে হ্যাকাররা খুব সহজেই পর্নোগ্রাফি সাইটগুলোর মাধ্যমে ডিভাইসে ম্যালওয়্যার ছড়াতে পারে।’

এই গবেষণাটি সম্পন্ন করতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং যুক্তরাজ্যের ১০ হাজার ভিন্ন ভিন্ন মোবাইল ডিভাইস খতিয়ে দেখা হয়েছে। গবেষণায় দেখা গেছে প্রতি ১০ হাজার গ্রাহকের মধ্যে ৩৪ জন প্রত্যেকদিন স্মার্টফোনে পর্নোগ্রাফি দেখেন। আর ইন্টারনেটে থাকা ৫০টি পর্নো সাইটের মধ্যে ৪০টি সাইটে ম্যালওয়্যার রয়েছে। আর একবার এসব ম্যালওয়্যার আপনার ফোনে ঢুকে গেলে তারা ব্যক্তিগত তথ্য চুরি করে হ্যাকারদের দিয়ে দিতে পারে। আর হ্যাকাররা এসব তথ্য ব্যবহার করে আপনাকে খুব সহজে প্রতারিত করতে পারে।

তাছাড়া গবেষণায় দেখা গেছে, শুক্রবারে মোবাইল ফোনে গ্রাহকরা সবচেয়ে বেশি পর্নোগ্রাফি দেখেন। আর সোমবারে সবচেয়ে কম পর্নোগ্রাফি দেখেন গ্রাহকরা। রাত ৮ টার পর থেকে মোবাইলে পর্নোগ্রাফি দেখার মাত্রা বেড়ে যায়। আর রাত ২-৩টা মোবাইল ভিত্তিক পর্নোগ্রাফি বেশি দেখেন গ্রাহকরা।

সূত্র: দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট

Related posts

Leave a Comment