গ্যালাক্সি এস৯ আহামরি কিছু নেই, দাম শুনে সবাই অবাক!

বাংলাদেশের বাজারে গ্যালাক্সি এস-৯ ফোন।  ফোনটি দেশের বাজারে আসবে কবে এই নিয়ে আগ্রহের কমতি ছিল না গ্রাহকদের মধ্যে।  আজ বাংলাদেশের বাজারের কবে ফোনটি আসবে এই ঘোষণা দেয়া হয় সংবাদ সম্মলেন করে। সংবাদ সম্মলেন করে যখন দাম জানানো হয়, তখনই শুরু হয় আলোচনা সমালোচনা। সবাই বলছে ফোনটিতে একেবারেই নতুন কিছু না থেকেই কিভাবে ফোনটির দাম এত হয়।  ফোনটি কিনতে একজন গ্রাহকে গুনতে হবে এক লাখ ৫ হাজার ৯৯৯ টাকা।  দাম বেশি হওয়ার কারণে গ্রাহক হারাতে পারে বলে ধারণা করছে অনেকেই।

প্রযুক্তি বিষয়ক ওয়েবসাইট বিজনেস ইনসাইডার বলছে, আহামরি কিছু নেই গ্যালাক্সি এস ৯ এ। আগের ভার্সনটিকে ঘষে মেজে আনা হইছে শুধু। নকশাতে পরিবর্তন নেই কিংবা অন্য কোনোকিছুতে বড় কোনো পরিবর্তন নেই। এমনকি অ্যান্ড্রয়েডের আপগ্রেড আসে পরে। খামোখা দাম বাড়ানো হয়েছে। ট্রেন্ড তুলে, মিডিয়াতে প্রচার করে বেশি দামে বিক্রি করা ছাড়া আর কিছু না। ঠিক পিআরের কৌশল। তবে মানুষ কি অতো বোকা? আইফোন টেনের সঙ্গে তুলনা করে দেখা যেতে পারে। সেখানে খুব বেশি এগিয়ে থাকবে কি?

আজ বাংলাদেশে সাংবাদিকদের ডেকে এস ৯ এর গুণকীর্তন করেছে স্যামসাং কর্তৃপক্ষ।  এরপর ভাড়া করা পিআর ফার্মের বরাত দিয়ে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে লিখেছে, বাংলাদেশের বাজারে নতুন স্মার্টফোন ‘স্যামসাং গ্যালাক্সি এস ৯ প্লাস’ আনতে যাচ্ছে স্যামসাং মোবাইল বাংলাদেশ। এ উপলক্ষে শনিবার (৩ মার্চ) রাজধানীর লেকশোর হোটেল, গুলশান-২ এ একটি ওয়ার্কশপের আয়োজন করা হয় তাতে স্যামসাংয়ের নতুন ফোনের ফিচারগুলো সম্পর্কে আলোচনা করেন স্যামসাং বাংলাদেশের ট্রেনিং ম্যানেজার মোহাম্মদ শাহরিয়ার।

ওয়ার্কশপে জানানো হয়, স্যামসাং গ্যালাক্সি এস ৯ প্লাসের সবচেয়ে বড় পরিবর্তন এসেছে ক্যামেরায়। এই স্মার্টফোনে উন্নতমানের ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে। যেটাতে গ্রাহকরা- সুপারস্লো-মোশন, ডুয়াল রিয়ার ক্যামেরা, ডুয়াল অ্যাপারচার, অ্যাপারচার ১.৫, এআর ইমোজি এবং লাইভ ফোকস ও ইফেক্টস সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন। এছাড়াও ওই স্মার্টফোনে ওয়াটার এবং ডাস্ট রেজিস্ট্যান্স, লো এনার্জি পাওয়ার এফিসিয়েন্ট প্রসেসর, ৪০০ জিবি এক্সটারনাল মেমোরি, ৬ জিবি র‌্যাম, ইন্টিলিজেন্ট স্ক্যান, নতুন স্টেরিও স্পিকার এবং অ্যাপ পেয়ার ব্যবহার করা হয়েছে।

স্যামসাংয়ের নতুন এই স্মার্টফোনটির দাম পড়বে এক লাখ ৫ হাজার ৯৯০ টাকা।  যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে এস ৯-এর দাম হবে ৭১৯ দশমিক ৯৯ মার্কিন ডলার আর এস ৯ প্লাসের দাম হবে ৮৩৯ দশমিক ৯৯ মার্কিন ডলার।

ইন্ডিয়া টুডের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারতের বাজারে এস ৯ এর দাম হবে ৬২ হাজার ৫০০ রুপি (৬৪ জিবি) ও ৭১ হাজার রুপি (২৫৬ জিবি)। এস ৯ প্লাসের দাম হবে ৭০ হাজার (৬৪ জিবি) ও ৭৯ হাজার রুপি (২৫৬ জিবি)।  এবার প্রশ্ন উঠবে, এ ফোনে আগের ভার্সনগুলোর চেয়ে খুব বেশি পার্থক্য কি আছে?

সিএনবিসি ওয়েবসাইটের এক প্রতিবেদনে বুলেট ফর্মে এ ফোনটি কেনার আগে দুবার চিন্তা করতে বলা হয়েছে। কারণ নতুন অ্যান্ড্রয়েড আপডেটের ক্ষেত্রে স্যামসাং সবচেয়ে স্লো। এর পরিবর্তে অন্য সাশ্রয়ী অ্যান্ড্রয়েড ফোন দেখতে বলা হয়েছে। প্রযুক্তি বিষয়ক অনেক ওয়েবসাইটে বলা হচ্ছে, কাগজে কলমে এস ৯ কে যতই উন্নত ক্যামেরা ফোন হিসেবে দাবি করা হোক, বাস্তবে কাজের ক্ষেত্রে ভিডিও খুব স্লো।
ফোনটি এবার মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে অন্যান্য বারের তুলনায় খুব বেশি আগ্রহ দেখাতে পারেনি। স্যামসাং যতই দাবি করুক ফোনটিতে অনেক আপডেট আছে কিন্তু একজন ভক্তের চাহিদা মেটাতে পারবে কিনা সে প্রশ্ন উঠতে পারে। সবচেয়ে বড় প্রশ্ন, আইফোন টেন, পিক্সেল টু, এলজি, এমনকি আগের এস ৮ রেখে এত দাম দিয়ে এস ৯ কিনে কি পোষাবে?